logo

FX.co ★ ব্যাংক অফ কানাডা সম্ভবত মার্কিন ফেডের 75-বেসিস-পয়েন্ট সুদের হার বৃদ্ধির পথ অনুসরণ করতে যাচ্ছে

ব্যাংক অফ কানাডা সম্ভবত মার্কিন ফেডের 75-বেসিস-পয়েন্ট সুদের হার বৃদ্ধির পথ অনুসরণ করতে যাচ্ছে

ব্যাংক অফ কানাডা সম্ভবত মার্কিন ফেডের 75-বেসিস-পয়েন্ট সুদের হার বৃদ্ধির পথ অনুসরণ করতে যাচ্ছে

গতকালের তথ্য অনুযায়ী, কানাডার ভোক্তা মূল্য মে মাসে এমন হারে বেড়েছে যা 1983 সালের জানুয়ারির পর থেকে আর দেখা যায়নি। ফলে জুলাই মাসে সুদের হারে "আরো জোরালো" বৃদ্ধির জন্য দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংকের উপর চাপ বাড়ছে।

আকাশছোঁয়া দ্রব্যমূল্য

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতো, কানাডাও এই বছর একটি মুদ্রাস্ফীতির চাপ অনুভব করছে। বিদ্যুতের দামের তীব্র বৃদ্ধি মে মাসে জীবনযাত্রার ব্যয় বাড়িয়ে দিয়েছে।

বুধবারে প্রকাশিত পরিসংখ্যান অনুসারে, দেশটিতে বার্ষিক মুদ্রাস্ফীতির হার গত মাসে 7.7% -এ ত্বরান্বিত হয়েছে, যা প্রায় 40 বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ।

এপ্রিলে দেশটিতে মুদ্রাস্ফীতি 6.8% ছিল এবং অর্থনীতিবিদরা মে মাসে 7.4% পর্যন্ত বৃদ্ধি পাবে বলে অনুমান করেছিলেন। মাসিক ভিত্তিতে, এপ্রিলে 0.6% বৃদ্ধির তুলনায় মে মাসে ভোক্তা মূল্য 1.4% বেড়েছে, যদিও বিশ্লেষকগণ 1% হবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছিলেন।

ফলে, দেশটিতে পোশাক এবং জুতার মূল্য গত মাসে 2.2% বৃদ্ধি পেয়েছে। পণ্যের দাম 0.8% বৃদ্ধি পেয়েছে। কানাডায় বাড়ির দাম 0.7% বেড়েছে।

অবশ্য, পেট্রোলের দামের তীব্র বৃদ্ধির কারণে কানাডায় মূল্যস্ফীতির প্রাথমিক ঊর্ধ্বগতি দেখা গেছে। মে মাসে, জ্বালানির দাম 12% বেড়েছে। একই সময়ে, পরিবহন খরচ 3% এর বেশি বেড়েছে।

অস্থিতিশীল খাদ্য এবং শক্তির দাম বাদ দিয়ে, তথাকথিত মূল ভোক্তা মূল্য সূচকও উল্লেখযোগ্য ঊর্ধ্বমুখী গতিশীলতা প্রদর্শন করেছে।

বার্ষিক ভিত্তিতে, পূর্ববর্তী 5.7%-এর বিপরীতে মুল ভোক্তা মূল্য সূচক বেড়ে 6.1% হয়েছে। এটি মুদ্রাস্ফীতি বৃদ্ধির প্রবণতাকে আবারও নিশ্চিত করে।

ব্যাংক অফ কানাডার অবস্থান

সর্বশেষ মুদ্রাস্ফীতির পরিসংখ্যানের ব্যাপারে মন্তব্য করে, ব্যাঙ্ক অফ কানাডার সিনিয়র ডেপুটি গভর্নর ক্যারোলিন রজার্স কম ট্র্যাজেডির সৃষ্টি করেননি।

তিনি বলেছেন, "মুদ্রাস্ফীতি খুব বেশি; এটি কানাডিয়ানদের ক্ষতি করছে,"। রজার্স যোগ করেছেন, "এটি আমাদের রাতে ঘুমাতে দিচ্ছে না এবং আমরা মুদ্রাস্ফীতিকে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যমাত্রায় না ফিরিয়ে আনা পর্যন্ত সহজে বিশ্রাম নেব না... সেজন্য আমরা সুদের হার বাড়াচ্ছি এবং আমরা যেমনটি বলে থাকি, আমরা বেশ আক্রমণাত্মকভাবে সুদের হাড় বাড়াতে যাচ্ছি,"৷

উল্লেখযোগ্যভাবে, ব্যাংক অফ কানাডা বুধবার নীতিগতভাবে সুদের হার 1.5%-এ উন্নীত করেছে, এটি পরপর দ্বিতীয়বারের মতো 50-বেসিস-পয়েন্টের বৃদ্ধি।

অধিকন্তু, চলতি মাসের শুরুতে, কানাডার নিয়ন্ত্রক সংস্থা মুদ্রাস্ফীতির চাপ প্রসারিত এবং তীব্র হতে থাকলে আরও সিদ্ধান্তমূলক পদক্ষেপ নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল।

এখন এটা স্পষ্ট হয়ে গেছে যে মুদ্রাস্ফীতি নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে। ফলে ব্যাংক অফ কানাডা জুলাই মাসে সুদের হার 75 বেসিস পয়েন্ট বাড়াবে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। রজার্স এরকম দৃশ্যকল্পের সম্ভাবনা একেবারে উড়িয়ে দেননি।

ইতিমধ্যে, সাম্প্রতিককালে ফেড কর্তৃক সুদের হার 75 বেসিস পয়েন্ট বাড়ানোর সিদ্ধান্তের পর বাজারের ট্রেডাররাও কানাডার নিয়ন্ত্রকের কাছ থেকে আরও আক্রমনাত্মক পদক্ষেপের জন্য অপেক্ষা করছে। পোল অনুসারে, 80% ভোটার মনে করছেন যে 13 জুলাইয়ে নির্ধারিত বৈঠকে কানাডার কেন্দ্রীয় ব্যাংক সুদের হার বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে।

কানাডিয়ান ডলারের প্রতিক্রিয়া

গতকাল, ট্রেডিং সেশনের শেষের দিকে, USD/CAD পেয়ারের মূল্য নিম্নমুখী প্রবণতা প্রদর্শন করেছে। অবশ্য, লুনি বা কানাডিয়ান ডলারের মূল্যের র্যালি অতিরিক্ত মুদ্রাস্ফীতি তথ্যের বদলে অন্যান্য বিষয় দ্বারা তুলনামূলক বেশি প্রভাবিত হয়েছিল।

USD/CAD পেয়ারের নেতিবাচক গতিশীলতার জন্য মার্কিন ডলারের দুর্বলতা এবং ফেড চেয়ার জেরোম পাওয়েলের বক্তৃতার পর মার্কিন সরকারের বন্ডের ইয়েল্ড হ্রাসকে দায়ী করা যেতে পারে।

আরো দেখুন: InstaForex is one of the leaders in the Forex market, 12 years on the market, more than 7,000,000 active clients
ব্যাংক অফ কানাডা সম্ভবত মার্কিন ফেডের 75-বেসিস-পয়েন্ট সুদের হার বৃদ্ধির পথ অনুসরণ করতে যাচ্ছে

এখন পর্যন্ত, ব্যাংক অফ কানাডার আরও হকিশ বা কঠোর অবস্থান গ্রহণের ব্যাপক প্রত্যাশার বিপরীতে বাজার সীমিত প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছে। অবশ্য, সুদের হার বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত যত এগিয়ে আসবে, কানাডিয়ান ডলারের চাহিদা তত বাড়বে।

আগামী কয়েক সপ্তাহে, বিনিয়োগকারীরা সম্ভবত কানাডিয়ান ডলারকে সমর্থন দেবে, যা এই বছরের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ লাভজনক মুদ্রা।

অবশ্য, কানাডিয়ান ডলার বা লুনি সম্পর্কে আরও দূরবর্তী ভবিষ্যতের পরিস্থিতিকে আশাবাদী বলা যায় না।

প্রধান কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলো একযোগে সুদের হার বৃদ্ধি করলে বিশ্ব অর্থনীতিকে উল্লেখযোগ্য ধাক্কা সামলাতে হতে পারে এবং কানাডিয়ান ডলারের মতো কমোডিটি কারেন্সির উপর চাপ সৃষ্টি করতে পারে।

মুদ্রানীতিমালা ব্যাপক কঠোর হওয়ায় মার্কিন মুদ্রার উপর বাজি ধরার উপযুক্ত, কারণ এটি ঐতিহ্যগতভাবে একটি নিরাপদ বিনিয়োগস্থল হিসাবে ব্যবহৃত হয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে মন্থরতা দেখা যাবে যা USD/CAD পেয়ারের জন্য সুবিধাজনক হবে।

* এখানে পোস্ট করা মার্কেট বিশ্লেষণ মানে আপনার সচেতনতা বৃদ্ধি করা, কিন্তু একটি ট্রেড করার নির্দেশনা প্রদান করা নয়
Go to the articles list Go to this author's articles Open trading account